Govt. Akber Ali College
classroutine
উত্তরবঙ্গের প্রবেশদ্বার হিসাবে খ্যাত সিরাজগঞ্জ জেলা, বাংলাদেশের ইতিহাস ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিতে অনন্য স্থান অধিকার করে রয়েছে। এই জেলায় জন্ম গ্রহণ করেছেন মাওলানা আব্দুর রশিদ তর্কবাগিশ, মাওলানা আব্দুল হামিদ খাঁন ভাসানী, ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী, সৈয়দ ইসমাইল হোসেন সিরাজী, মো: নজিবর রহমান সাহিত্য রত্ন ও যাদব চন্দ্র চক্রর্বতী প্রমূখ-এর মতো মহান কীর্তিমান পুরুষ। উল্লাপাড়া সিরাজগঞ্জ জেলার ০৯টি উপজেলার মধ্যে একটি অন্যতম উপজেলা। ব্রিটিশ শাসনের বিরুদ্ধেঐতিহাসিক সলঙ্গ বিদ্রোহ এই উপজেলায় সংঘটিত হয়। এই অঞ্চলের মানুষ দীর্ঘদিন থেকে রাজনীতি অর্থনীতি ও সমাজ সর্ম্পকে সচেতন। এই অঞ্চলের মধ্যে মানুষের শিক্ষার আলোর প্রভা ছড়াতেই ১৯৭০ সালে উল্লাপাড়ার কিছু সংখ্যক গুনীজনের আন্তরিক প্রচেষ্টায় প্রতিষ্ঠিত হয় আকবর আলী কলেজ। এদের মধ্যে জনাব এম, আকবর আলী, জনাব কাজী সাইদুর রহমান, জনাব জিল্লুর রহমান, বাবু শচিন্দ্রনাথ ঠাকুর প্রমুখ ব্যক্তির নাম উল্লেখযোগ্য। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই উজ্জল সম্ভাবনার পদযাত্রায় এলাকার মানুষের মধ্যে শিক্ষা ক্ষেত্রে এ প্রতিষ্ঠানটি ব্যাপক সম্ভাবনার দ্বার উম্মোচন করে। ফলে আকবর আলী কলেজটি এলাকাবাসীর গর্বের প্রতীক হিসাবে বিবেচিত হয়। পরবর্তীতে এ কলেজের শিক্ষার মান, অবকাঠামোগত উন্নয়ন, এর অবস্থান ও সম্ভাবনার দিক বিবেচনা করে ১৯৮৪ সনে কলেজটিকে জাতীয়করণ করা হলে কলেজটি সরকারী আকবর আলী কলেজ নামে যাত্রা শুরু করে। বর্তমানে এই কলেজটি সিরাজগঞ্জ জেলা তথা উত্তরবঙ্গের মধ্যে একটি অন্যতম বৃহত্তম কলেজ। ২০০৯-২০১০ শিক্ষাবর্ষ থেকে কলেজটি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক অনার্স কলেজ হিসাবে স্বীকৃতি লাভ করেছে। এক্ষেত্রে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সংস্থাপন ও স্বরাষ্ট বিষয়ক উপদেষ্টা জনাব এইচ, টি, ইমাম ও সম্মানিত সংসদ সদস্য জনাব মো: শফিকুল ইসলাম-এর অবদান অনিস্বীকার্য অল্প কিছু সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষক নিয়ে এই কলেজ যাত্রা শুরু করলেও আজ ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা প্রায় তিন হাজার। ছাত্র-ছাত্রীরা যোগ্য ও দায়িত্ব সচেতন শিক্ষকমন্ডলীর তত্ত্বাবধানে লেখাপড়া করার ব্যাপক সুযোগ লাভ করছে। বর্তমানে কলেজটিতে শুধুমাত্র স্থানীয় ছাত্র-ছাত্রী নয় সিরাজগঞ্জ, পাবনা, বগুড়া ও নাটোর জেলার বিভিন্ন অঞ্চলের ছাত্র-ছাত্রীরা শিক্ষা লাভ করছে। কলেজটি দেশের অভিভাবক সমাজ ও সুধীজনের প্রশংসা লাভ এবং মনোযোগ আকর্ষণ করতে সমর্থ হয়েছে। লেখাপড়ার সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশ, প্রতিবছর বোর্ড ও বিশ্ববিদ্যায় পরীক্ষায় ছাত্র-ছাত্রীদের কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফলই তার প্রধান কারণ। ঢাকা – পাবনা মহাসড়কের পাশেই প্রাকৃতিক মনোরম পরিবেশে স্থাপিত কলেজটিতে রয়েছে বিশাল খেলার মাঠ ও একটি দৃষ্টি নন্দন পুকুর। কলেজের নিজস্ব ছাত্রাবাস ও ছাত্রী নিবাসে প্রায় দুইশত ছাত্র-ছাত্রীর আবাসন ব্যবস্থা রয়েছে। স্থানীয় রাজনীতিবিদ, শিক্ষাবিদ, সমাজ সেবক, সাংবাদিক, সংস্কৃতিসেবী ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের আন্তরিক প্রচেষ্ঠায় কলেজটি একটি শিক্ষা বান্ধব প্রতিষ্ঠান হিসাবে স্বীকৃতি লাভ করেছে। কলেজটি রাজনীতি ও ধূমপান মুক্ত একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান । ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য রয়েছে নিজস্ব ইউনিফরম। শিক্ষাদানের পাশাপাশি কলেজটিতে শিক্ষা সহায়ক কার্যক্রম যেমন- বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা, আন্তঃশ্রেণী ফুটবল প্রতিযোগিতা, শিক্ষা ভ্রমন ইত্যাদির আয়োজন করা হয়। ছাত্র-ছাত্রীদের নেতৃত্ব বিকাশে রয়েছে একটি সুসজ্জিত রোভার স্কাউট ইউনিট । তাই যে কোন শিক্ষার্থীর জন্য কলেজটি একটি আদর্শ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।
  নোটিশ বোর্ড

*** 2016-17 শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির অন লাইনে ও এসএসএস এর মাধ্যমে আবেদনের নিয়মাবলী ***

Download

*** ডিগ্রি (পাস) ২য় বর্ষ (২০১২-২৩) ও ৩য় বর্ষ (২০১১-১২) ফরম পূরণ ***

Download

*** দ্বাদশ শ্রেণির নির্বাচনী পরীক্ষা শুরু 06.09.2015 ***

Download

*** দ্বাদশ শ্রেণির নির্বাচনী পরীক্ষা শুরু 06.08. ***

Download

*** 2015-16 শিক্ষাবর্ষ একাদশ শ্রেণিতে আবেদনের নিয়মাবলী ***

Download

*** 2015-16 শিক্ষাবর্ষ একাদশ শ্রেণিতে আবেদনের নিয়মাবলী ***

Download

*** একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি-2015-16 শিক্ষাবর্ষ ***

Download